সাবজেক্ট রিভিউ

Sociology বা সমাজতত্ত্ব নিয়ে কেন পড়বেন: সাবজেক্ট রিভিউ

সমাজবিজ্ঞান বা Sociology বিষয়ে পড়াশোন কেমন হবে?

সতর্কতাঃ কম পড়াশোনা করে যারা বেশী নম্বর পাওয়ার বাসনা পোষণ করেন তারা অবশ্যই সবার আগে বিষয় পছন্দের তালিকায় সমাজবিজ্ঞানকে শেষে ফেলে দিন!

Sociology বা সমাজতত্ত্ব সাবজেক্ট রিভিউ

➡️সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের অন্যমত মৌলিক বিষয় সমাজবিজ্ঞান বা Sociology । এই অনুষদের যেকোনো বিভাগ বা অন্য অনুষদের অনেক বিভাগে পড়তে গেলেও সমাজবিজ্ঞানের সাথে প্রাথমিক পরিচয় আপনার হয়েই যাবে। যে কয়টি বিষয়ে অধ্যয়ন জীবনকে সরাসরি প্রভাবিত করে, তার মধ্যে সমাজবিজ্ঞান একটি। সোজা কথায় সমাজবিজ্ঞান একটি প্র্যাকটিক্যাল বিষয়। এই বিষয়ে পড়তে এলে আপনার কাজ হবে মানুষের সামষ্টিক আচরণ এবং এর কারণ, ইতিহাস, বর্তমান, ভবিষ্যৎ জানা-বোঝা।

সমষ্টি কীভাবে ব্যক্তিকে প্রভাবিত করে, ব্যক্তি কীভাবে সমষ্টির অংশ হয় এইসব প্রশ্ন থেকে আপনার পাঠ শুরু হবে। বিস্তৃত বিষয় বলে সমাজবিজ্ঞানে পড়াশোনা অনেক। বিষয়ভিত্তিক প্রায় সকল মূল টেক্সট এবং পড়াশোনা ইংরেজিতে। কাজেই ইংরেজি পড়ার অভ্যাস থাকলে ভালো, নাহলে গড়ে তুলতে হবে।

See also  Women and Gender Studies নিয়ে কেন পড়বেন: সাবজেক্ট রিভিউ

➡️ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের বয়স হয়েছে বাষট্টি। এখন এই বিভাগে পড়তে এসে প্রথম সেমিস্টারেই আপনার দেখা হয়ে যাবে বিভাগের প্রবীনতম দুজন শিক্ষকের সাথে যাঁরা শেখান বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়াশোনা এবং সমাজবিজ্ঞান Sociology নিয়ে পড়াশোনার সত্যিকারের মানে। এই বিভাগে আপনি আরো কয়েকজন শিক্ষককে পাবেন যাঁরা পড়াশোনা করার জন্যই পড়াশোনা করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতির সার্বিক চিত্রও বুঝতে পেরে যাবেন এই বিভাগে পড়াশোনা করতে এলে।

 

➡️এই বিষয়ে পড়াশোনার মূল অসুবিধা হল আপনি আবিষ্কার করবেন অন্য বিভাগের তুলনায় সিজিপিএ প্রাপ্তির হার কম; কারণ বিভাগটিতে ওভারমার্কিং তুলনামূলকভাবে কম করা হয় এবং বেশী বেশী পড়াশোনা করাকে উৎসাহিত করা হয়। পড়াশোনার থেকে সিজিপিএ তে আগ্রহ বেশী হলে আপনার জন্য অন্য বিষয় পছন্দ করা বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

 

➡️সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের অন্য যেকোনো বিষয়ের মতো এই বিষয়ে ক্লাস কম। কাজেই আপনি সহপাঠের বিভিন্ন কাজকর্ম বা নিজের আয়ের সংস্থানের খুচরো ব্যবস্থা করার পর্যাপ্ত সময় পাবেন।

 

➡️সমাজবিজ্ঞানের শিক্ষার্থীদের কাজ করার ক্ষেত্রের সীমারেখা টানা দায়। শিক্ষকতা পেশায় বাংলাদেশের শিক্ষাঙ্গনে অপরিসীম অবদান রেখেছেন এই বিভাগের প্রথিতযশা শিক্ষকগণ। শিক্ষকতা ছাড়াও বিভিন্ন রিসার্চ ফার্মে, এনজিওতে, সংবাদমাধ্যমে এবং অবশ্যই বিভিন্ন বিসিএস ক্যাডারে উল্লেখযোগ্য হারে যুক্ত হন সমাজবিজ্ঞানের শিক্ষার্থীরা। তবে জীবনে যেক্ষেত্রেই যান, সমাজবিজ্ঞানের পড়াশোনা আপনাকে প্রত্যক্ষ বা

See also  আমরা কেন পদার্থবিজ্ঞান পড়ব এ সম্পর্কে একটি প্রতিবেদন

পরোক্ষভাবে সবসময় সাহায্য করবে এগিয়ে রাখবে এই বিষয়ে নিশ্চয়তা দেওয়া যেতে পারে। সমাজবিজ্ঞান বহুবিধ অঙ্গনে কৃতী মানুষ প্রতিষ্ঠা করে এসেছে। কৃতী প্রাক্তনদের তালিকা তুলে ধরলে এই লেখাটি শেষ হওয়ায় নয়।

সমাজ, মানুষ এবং পড়াশোনা নিয়ে আগ্রহী হয়ে থাকলে সমাজবিজ্ঞান Sociology বিভাগে আপনাকে স্বাগত জানাই।

Related Articles

Back to top button