সাবজেক্ট রিভিউ

নীটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারিং এন্ড টেকনোলজি নিয়ে কেন পড়বেন?

নীটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারিং এন্ড টেকনোলজি (KMT) সাবজেক্ট রিভিউ

নীটওয়্যার কোর্স সাধারণত কত বছরের?

৪ বছর, ৮ টি সেমিষ্টার।

 

নীটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারিং এন্ড টেকনোলজি বাংলাদেশের কোন কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ানো হয়?

প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় গুলোর মধ্যে কেবল মাত্র বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অব ফ্যাশন এন্ড টেকনোলজি তে উল্লেখিত নীটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারিং এন্ড টেকনোলজি (KMT) বিষয়টি রয়েছে।
এছাড়া, ন্যাশনাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ন্ত্রণে NIFT- ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ফ্যাশন এন্ড টেকনোলজি তে এই বিষয়টি পড়ানো হয়।

 

নীটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারিং এন্ড টেকনোলজি পুরো ৪ বছরে কি কি কোর্স পড়ানো হয়?

সর্বমোট ১৬০ ক্রেডিট সম্বলিত এই বিষয়ে বিশেষভাবে নিট (Knit) নিয়ে কিছু core কোর্স সহ ব্যবসায় শিক্ষা, টেক্সটাইল ইঞ্জিনয়ারিং এর কিছু কোর্স পড়ানো হয়।

এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো-

Polymer Science & Engineering, Fiber Science & Engineering, Engineering Drawing, Yarn Manufacturing Engineering, Special Weft Knitting & Warp Knitting Mechanisms, Advanced Knitting Mechanisms, Soft Computing Techniques in Knitting, Dyeing & Finishing Technology, Textile Testing & Quality Control, Textile Printing Technology, Global Knitwear Business & Bangladesh’s Strength, Knitwear Merchandising & Sourcing, Knitwear Manufacturing Engineering, Environmental & Social Compliances in Knitwear Industries, Advances in Knitwear Manufacturing Engineering, Knitwear Testing & Quality Management, Research Methodology ইত্যাদি।

 

নীটওয়্যার পড়াশোনা করে ভালো করতে হলে এসএসসি অথবা এইচএসসি লেভেলের কোন বিষয়গুলোর উপর দক্ষতা থাকা প্রয়োজন?

See also  Peace and Conflict Studies নিয়ে কেন পড়বেন?

এটি টেক্সটাইল বেইজ সাবজেক্ট। যেহেতু আমরা সাধারণত এসএসসি কিংবা এইচএসসি লেভেলে টেক্সটাইল রিলেটেড কোনো বিষয় পড়ি না সেহেতু একটি নতুন বিষয় এটি এবং এর উপর কোনো দক্ষতা থাকেনা। তাই এতে ভালো করতে হলে এই বিষয়ে পড়াশোনা করেই এর সম্পর্কে দক্ষতা অর্জন করতে হবে এবং ভালো করতে হবে।

 

একজন সদ্য এইচএসসি পাশ শিক্ষার্থী কিভাবে বুঝতে পারবে এ বিষয়ে তার আগ্রহ রয়েছে কিনা?

যেহেতু এই বিষয়টি মাত্র ১ টি বিশ্ববিদ্যালয়ে রয়েছে এবং ইউনিক। কেউ যদি অল্প সময়ে ভালো ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে চায় তাহলে সে এই বিষয়ে পড়াশোনা করতে আগ্রহ প্রকাশ করতে পারে।

 

নীটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারিং এন্ড টেকনোলজি নিয়ে পড়াশোনার ধরন কেমন?

যেহেতু এটি একটি ক্লথিং ম্যানুফ্যাচারিং প্রসেস সম্পর্কিত বিষয় সেহেতু এখানে তাত্ত্বিক বিষয়ের চেয়ে ব্যবহারিক বিষয় বেশি পড়ানো হয়ে থাকে। তাই এতে তাত্ত্বিক এবং ব্যবহারিক উভয়ই পড়ানো হয়।

 

নীটওয়্যার পড়াকালীন কি কি এক্সট্রা কারিকুলার আক্টিভিটির সাথে যুক্ত থাকা যায় যা পরবর্তীতে ক্যারিয়ার গঠনে হেল্প করবে?

পড়াশোনার পাশাপাশি বিভিন্ন এক্সট্রা করিকুলার একটিভিটি তে যুক্ত থাকা যায় যা পরবর্তীতে ক্যারিয়ার গঠনে ভূমিকা রাখে। বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন ক্লাব রয়েছে এর মধ্যে দুটি ইন্টারন্যাশনাল ক্লাব রয়েছে। তন্মধ্যে – ক্যারিয়ার ডেভলপমেন্ট ক্লাব, BUFT মডেল ইউনাইটেড ন্যাশনস ক্লাব, BUFT লিও ক্লাব, স্পোর্টস ক্লাব ইত্যাদি।

বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত অবস্থায় কোনো ইন্টার্নশিপের সুযোগ আছে?

See also  রোবটিক্স এন্ড মেকাট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে কেন পড়বেন?

অবশ্যই। অধ্যয়নরত অবস্থায় যেকোনো গার্মেন্টস কোম্পানিতে ইন্টার্নশিপের সুযোগ রয়েছে।

এ বিষয়ে পড়াশোনা শেষে সরকারি চাকরির ক্ষেত্রগুলো কি কি?

এই বিষয় থেকে বিএসসি অনার্স কমপ্লিট করার পর সরকারি চাকরির ক্ষেত্রে বিসিএস, ব্যাংক এবং শিক্ষকতা পেশায় এপ্লাই করার সুযোগ থাকে।

 

এ বিষয়ে পড়াশোনা শেষে প্রাইভেট চাকরির ক্ষেত্রগুলো কি কি?

যেহেতু এটি একটি প্রাইভেট ইন্ডাস্ট্রি রিলেটেড বিষয় এবং বিশ্বে বাংলাদেশ টেক্সটাইল খাতের রপ্তানিতে ২য় স্থান দখল করে আছে সেহেতু বাংলাদেশের বিশাল গার্মেন্টস ইন্ডাস্ট্রি তে চাকরির সুযোগ রয়েছে। বাংলাদেশে আনুমানিক ৬৫ শতাংশ ই Knit গার্মেন্টস রয়েছে। সেক্ষেত্রে এখানে চাকরির সুযোগ টা খুব বেশি।

গার্মেন্টস কোম্পানিতে প্রথম দিকে ট্রেইনি মার্চেন্ডাইজার হিসেবে ফ্রেশার দের এপয়েন্ট করে। পরবর্তীতে ক্রমাগত ভাবে অ্যাসিস্ট্যান্ট মার্চেন্ডাইজার, সিনিওর মার্চেন্ডাইজার ইত্যাদি উচ্চ পদে পদোন্নতি হয়ে থাকে। পদোন্নতির পাশাপাশি বেতন বৃদ্ধি হতে থাকে।

 

এ বিষয়ে পড়াশোনা করে বিশ্ববিদ্যালয়ে লেকচারার হবার সুযোগ কেমন?

এই বিষয়ে পড়াশোনা করে ন্যূনতম এমএসসি কমপ্লিট করে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের টেক্সটাইল ডিপার্টমেন্ট এ লেকচারার হবার সুযোগ রয়েছে অথবা টেক্সটাইল ডিপার্টমেন্ট আছে এমন কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ে লেকচারার হিসেবে চাকরির সুযোগ রয়েছে।

 

এই বিষয়ে পড়াশোনা শেষে স্যালারি কেমন?

প্রথমেই আসি বেসরকারি ক্ষেত্রে, এই বিষয়ে পড়াশোনার শেষে গার্মেন্টস ইন্ড্রাস্ট্রিতে চাকরির শুরুতে স্যালারি রেঞ্জ ন্যূনতম ২০ হাজার থেকে সর্বোচ্চ ২৫ হাজার টাকা হয়ে থাকে যা পরবর্তীতে পদোন্নতি কিংবা জব শিফটের মাধ্যমে প্রায় লাখের সংখ্যায় বাড়তে থাকে অল্প সময়ের ব্যবধানে।

See also  বায়োকেমিস্ট্রি এন্ড মলিকুলার বায়োলজি নিয়ে কেন পড়বেন?

সরকারি ক্ষেত্রে, বিশেষ করে ব্যাংক জব গুলোতে স্টার্টিং স্যালারি রেঞ্জ ন্যূনতম ২০ হাজার থেকে – সর্বোচ্চ ৩০ হাজার টাকা হয়ে থাকে।

লেকচারার হিসেবে স্যালারি স্টার্টিং রেঞ্জ ন্যূনতম ২০ হাজার থেকে সর্বোচ্চ ৬০-৭০ হাজার টাকা হয়ে থাকে।

 

রিসার্চের কেমন সুযোগ রয়েছে?

রিসার্চের ক্ষেত্রে টেক্সটাইল ফাইবার, ইয়ার্ন ইত্যাদি নিয়ে রিসার্চের সুযোগ রয়েছে।

 

এই বিষয় পড়ে বাইরের কোন দেশগুলোয় যাওয়ার সুযোগ বেশি?

যেহেতু বিশ্বে টেক্সটাইল খাতের ১ম স্থান এ চায়না স্থান করে নিয়েছে সেহেতু সবচেয়ে বেশি সুযোগ চায়নাতেই আছে। বিশেষ করে চায়নার Wuhan শহরে অবস্থিত Wuhan Textile University তে পড়াশোনার সুযোগ রয়েছে। পাশাপাশি ভারতের দিল্লিতে অবস্থিত NIFT (National Institute of Fashion Technology) এবং জার্মানির Dresden এ অবস্থিত Dresden University of Technology তে পড়াশোনার সুযোগ আছে।

 

দেশের বাইরে উচ্চশিক্ষার জন্য গেলে স্কলারশিপ কি ধরণের পাওয়া যায়? স্কলারশিপ পেতে কি কি পন্থা অবলম্বন করতে হয়?

দেশের বাইরে উচ্চশিক্ষার জন্য মেরিট বেইজ্ড স্কলারশিপ পাওয়া যায়। স্কলারশিপ পেতে হলে বাইরের দেশে এপ্লাই করার জন্য ন্যূনতম রেজাল্ট ভালো রাখতে হয়।
সবশেষে বলতে হয়, যদি তোমরা চাকরির ক্যারিয়ার নিয়ে খুব চিন্তিত থাকো তাহলে এই গার্মেন্টস সেক্টর তোমাদের জন্যে।

নিজেকে বিশ্বের ২য় গার্মেন্টস এক্সপোর্টার বাংলাদেশের গার্মেন্টস ইন্ড্রাস্ট্রিতে একজন সদস্য হিসেবে দেখতে চাও এবং অল্প সময়ে ভালো একটা ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে চাও তাহলে তোমাদেরকে স্বাগতম জানাই।

Related Articles

Back to top button