সাবজেক্ট রিভিউ

ক্রিমিনোলজি নিয়ে কেন পড়বেনঃসাবজেক্ট রিভিউ

Criminology ক্রিমিনোলজি নিয়ে কেন পড়বেন: সাবজেক্ট রিভিউ

পড়াশোনার ধরণ ও বিষয়বস্তু

সমাজবিজ্ঞান, অপরাধ সংক্রান্ত আইন-কানুন, বিচার ব্যবস্থা, অপরাধীদের মনোবিজ্ঞান, অপরাধ কেন ঘটে তার মানসিক, সামাজিক, জীবতাত্ত্বিক কারণ, ফরেন্সিক সাইন্স, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক প্রেক্ষাপটে অপরাধের ধরণ, পুলিশ প্রশাসন, ব্যবস্থা এবং জেল ব্যবস্থাপনা, পরিসংখ্যান, রিসার্চ মেথোডোলজি, সহায়ক বিষয় হিসেবে গণিত, অর্থনীতি ইত্যাদি।

 

অনার্স এবং মাস্টার্স কোর্সের সময়কাল

অফিশিয়ালি ৪ বছর এবং ১ বছর।

ক্রিমিনোলজি সাবজেক্ট রিভিউ

ক্রিমিনোলজি নিয়ে দেশে চাকুরী এবং গবেষণা ক্ষেত্র

দেশে আপাতত বিভিন্ন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী যেমন, যেমন বিসিএস এর মাধ্যমে পুলিশ, এনএসআই, সিআইডি ইত্যাদি সংস্থায় কাজ করার সুযোগ রয়েছে। এছাড়াও যেসব সরকারি ও বেসরকারী সংস্থা আইন, অপরাধ, মানবাধিকার – ইত্যাদি বিষয় নিয়ে গবেষণা ও কাজ করে সেগুলোতে ভাল কাজ করার ব্যপক সম্ভাবনা রয়েছে।

 

ক্রিমিনোলজি নিয়ে উচ্চশিক্ষার উদ্দেশ্যে বিদেশ গমনের হার

এখনও পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিষয়টি নতুন। তবে বিদেশে এই বিষয়ের ব্যপক চাহিদা রয়েছে এবং কাজের ক্ষেত্রও বৈচিত্র্যময় । তাই বিদেশে পড়তে যাওয়ার ভাল সুযোগ রয়েছে।

See also  রোবটিক্স এন্ড মেকাট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে কেন পড়বেন?

 

ক্রিমিনোলজি নিয়ে পাশ করতে সময় কত লাগে? সেশনজ্যাম কতটুকু?

সাধারণত নির্ধারিত সময় থেকে ৩ থেকে ৫ মাস পর্যন্ত বেশি লেগে যায়।

 

ক্রিমিনোলজি নিয়ে পরীক্ষার ফ্রিকুয়েন্সি

বছরে দুইটি সেমিস্টার ফাইনাল এবং প্রতি সেমিস্টারে একটি মিডটার্ম, দুইটি/একটি ইনকোর্স হয়ে থাকে।

 

সপ্তাহে কয় ঘন্টা ক্লাস? ল্যাব ফ্যাসিলিটিজ কেমন?

সপ্তাহে খুব বেশি হলে ৬-৮ ঘন্টা ক্লাস হতে পারে। ল্যাব নেই কিন্তু একটা সেমিনার লাইব্রেরী আছে।

 

কতজন করে শিক্ষার্থী ভর্তি হয় প্রতি বছর?

প্রতিবছরের শিক্ষার্থী সংখ্যা সমান নয়। গড়ে ৫০-৬০ জন।

 

ক্রিমিনোলজি নিয়ে পার্টটাইম কাজ করার মতন ফিল্ড আছে কি?

অনেক আছে। নিজেদের ইন্টারেস্ট অনুযায়ী বিভিন্ন ফিল্ডে কাজ করা যায়। ডিপার্ট্মেন্ট থেকেও বিভিন্ন রিসার্চ প্রজেক্টে শিক্ষার্থীদের কাজ করার সুযোগ করে দেয়া হয়।

 

ক্লাব এক্টিভিটিজে সময় দিতে গেলে পড়ালেখা কতটুকু করতে পারা যাবে?

পড়ালেখার পাশাপাশি ক্লাব এক্টিভিটিজ ভালমতই চালিয়ে নেয়া যাবে।

 

এই বিষয়ে পড়ে অনুষদের অন্য কোন বিষয়ে মাস্টার্স করতে পারা যাবে কী?

See also  বিশ্ব ধর্ম ও সংস্কৃতি নিয়ে কেন পড়বে: সাবজেক্ট রিভিউ

হ্যাঁ, কাছাকাছি রিলেটেড বিষয়ে করতে সুবিধা হবে।

 

ইয়ার সিস্টেম নাকি সেমিস্টার সিস্টেম? এটা ভাল নাকি মন্দ?

সেমিস্টার সিস্টেম। আমার মতে, অবশ্যই ভাল।

 

ক্রিমিনোলজি নিয়ে নবাগতদের উদ্দেশ্যে কি বলার আছে?

এই দেশের প্রেক্ষাপটে এই সাবজেক্টের জ্ঞান দিয়ে অনেক কিছু করার আছে যা গ্রেডের চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। নিজের কৌতূহল আর পড়ার ইচ্ছা কখনো ডিপার্টমেন্টের হাতে ছেড়ে দিলে হবে না। যদি আসলেই এই বিষয়ে পড়ার আগ্রহ থাকে শুধুমাত্র তাহলেই এখানে পড়তে আসতে হবে। পড়াশোনা একেবারেই নিজ দায়িত্বে করতে হবে।

ভাল ফলাফল বজায় রাখলে এবং আসলেই এই ফিল্ডে কিছু করার ইচ্ছা থাকলে এখানে পড়ে নতুন কিছু করার ভাল সম্ভাবনা রয়েছে। এই ডিপার্টমেন্টে নীতি একটি শক্তি। যুক্তি একটি বন্ধু। এবং দন্ডিতের প্রতি দন্ডদাতার সহানুভূতি অপরিহার্য।

Related Articles

Back to top button